Header AD

শামীমা সুমি'র কবিতা || এমন দেশ কি চাইছিলাম?



আমি ছমিরন..... স্বাধীনতা মাসটা আইলেই ক্যান যে, 

আমার মাথাডা আর ঠিক থাহে না, রক্ত চড়বড় কইরা উঠে।

চক্ষে ভাটার আংড়া জ্বলজ্বল করে, পুড়াইয়া দিতে মন চায় হগল কিছু,

চুরমার কইরা ভাইঙা ফালাইতে মন চায় জগত সংসার।


রাজাকারের হাতে যখন দেখি দেশের পতাকা,

জাত শিয়াল যহন দাঁড়িত হাত বুলাইয়া কয় জয় বাংলা।

মুক্তির আস্তিনে যহন দেখি পাহিস্থানের বিষাক্ত সাপ,

দেশডারে আস্তেধীরে গিল্লা খাইতাছে পুরান পাপীর দল।


দেশে যেদিন যুদ্ধ লাগলো ভাই আমার যুদ্ধে গেলো,

বুকের জাবড়াইয়া শেষ বিদায়ের আদর কইরা গেলো সোয়ামী। 

বাপের বুক গর্বে ভইরা গেলো এহন থেইক্কা মুক্তিসেনার বাপ

হায়েনার হাত থেইক্কা কাইড়া আনবো সোনার বাংলা।


মিলিটারী যেদিন গেরামে আইলো হক্কল মানুষ ডরে পলাইলো

উডানে রইদ দিছিলাম বিন্নী ধান আর জলপাইয়ের আচার । 

ছামাত বইয়া বিলি কাইট্টা দিতাছিলাম মার আধাপাকা চুলে

দুয়ারে বইয়া বাজান আমার দাঁতন করতাছে নিমডাল দিয়া।


আচম্বিত বুকেত্থন দুধের বাচ্চা কাইড়া নিয়ে উডানে আছড়াইয়া মারলো

বেয়নেট দিয়া খোঁচাইয়া মারলো আমার বাজান রে, 

মার বুকে করলো রাইফেলের গুলি দিয়া ঝাঁঝরা 

আর আমারে..... আমারে টাইন্না নিয়া গেলো ক্যাম্পে।

ওওও বাজান গোওওওও কইয়া চিক্কার পারতেছিলাম।


বাড়ির আবডালে ছোঁকছোঁক কইরা ঘুরতো বেড়াইতো শুকুনের লাহান,

ক্যাম্পে বুক ফুলাইয়া খাড়াইয়া হেই ছগির কানে কানে কয় 

বহুত রূপের দেমাগ আছিল তোর, তেজে মাডিত পাও রাহস নাই

অহন তোর সাধের যৌবন চিল কাউয়া ছিড়ড়া ছিড়ড়া খাইবো।


হায়েনার দল যহন চইড়া বসলো আমার গতরের উপর 

য্যান সাঁড়াশি ঢুকাইয়া দিলো শইললের ভিতরে, 

যন্ত্রনায় মাগোওও কইয়া চিৎকার দিচ্ছি 

হের বাদে আর কইতে পারি না

হেরপর খালি মুখ বদল অয় মানুষ আর খুঁইজ্যা পাই না।


মোল্লাবাড়ির সালেহাবু হিন্দুবাড়ির পুর্ণিমা চুলের মুডির লগে ছাদের রডে ঝুলাইন্না,

মাডিত মরা আধমরা মাইয়া মানুষ ছড়াইন্না ছিডাইন্না 

কারো বুকে মাংস নাই কারো পাছায়, ছুডু ছুডু মাইয়াগো দুপায়ে টাইন্না ছিড়ড়া রাখছে,

সব চাইয়া চাইয়া দেখছি বিশ্বাস না হইলে সুইপার রাবেয়াবুরে জিগাও তোমরা।


দেশ স্বাধীন অইলো আমরা নরক থেইক্কা মুক্তি পাইলাম,

আত্মীয়-স্বজন ত্যাগ করলো সমাজ কইলো 

নষ্টা, শেখসাব কইলো আমরা বীরঙ্গনা, 

শেখসাবেরে মাইরা ফালাইলো হার্মাদের বংশধরেরা, 

আবার নামলাম পথে মাইনষের দুয়ারে লাত্থি উষ্ঠা খাই আমরা।


অনেক লাঞ্ছনা গঞ্জনা সহ্য করতে করতে শান্তির মুখ দেখলাম

শেখের বেটি দেশে আইলো ঘর দিলো ভাত কাপড় দিলো

কিন্তু ছগিরগো মতন রাজাকাররা যখন এমপি মন্ত্রী অয়

কইলজা ফাইট্টা কান্দন আয়ে, দুইচোখ আন্দা কইরা ফালাইতে মন চায়।


যুদ্ধে বাপ ভাই সোয়ামী হারাইলাম ভিটামাটি হারাইলাম 

বুকের শিশু হারাইলাম ইজ্জত হারাইলাম লক্ষ ভাইয়ের বুকের রক্ত দিয়া আনলাম দেশের পতাকা,

সেই পতাকা দেশদ্রোহীর হাতে ক্যান, ক্যান বুক ফুলাইয়া আডে কুচক্রী রাজাকার আর তাগো দোসর,

জবাব চাই জবাব চাই তোমাগোরে দিতে অইবো জবাব আইজ দেও নাইলে কাইল, 


এমন দেশ কি আমরা চাইছিলাম?

Post a Comment

Post a Comment (0)

Previous Post Next Post

ads

Post ADS 1

ads

Post ADS 1